Sponsored Ads
Home >> Shop >>
Sponsored Ads
Label

১৯৬৪ সালে নজরুল একাডেমীর তৎকালীন সাধারণ সম্পাদক কবি তালিম হোসেন তাঁর বন্ধু বিচারপতি  এ কে এম নুরুল ইসলামকে সঙ্গে নিয়ে  ‘নজরুল একাডেমী’ প্রতিষ্ঠা করার মহান পরিকল্পনা গ্রহণ করেন। সে বছরই সাংগঠনিক পর্যায়ে জনাব নুরুল ইসলামের ১১নং র‌্যাংকিন স্ট্রিটের বাসভবনে বিচারপতি জনাব আবু সাঈদ চৌধুরীর সভাপতিত্বে একাডেমীর প্রথম নজরুল জন্মবার্ষিকী উদযাপিত হয়। এই অনুষ্ঠানেই নজরুল একডেমী প্রতিষ্ঠা করার প্রস্তাব আনুষ্ঠানিকভাবে গৃহীত হয় এবং এজন্য একটি সাংগঠনিক কমিটি গঠন করা হয়। এই কমিটিতে অন্তর্ভুক্ত হন Ñআবুল কালাম শামসুদ্দীন(সভাপতি), তালিম হোসেন(সম্পাদক), একেএম নুরুল ইসলাম(কোষাধ্যক্ষ) এবং সদস্য হিসাবে ইব্রাহিম খাঁ, খান মোহাম্মদ মইনুদ্দীন, সুফিয়া কামাল, সিরাজ উদ্দীন হোসেন, কাজী আবুল কাসেম, মোহাম্মদ মাহ্ফুজউল্লাহ, জাহানারা আরজু, মাফরুহা চৌধুরী প্রমুখ। সাংগঠনিক পর্যায়ে কিছু সভা, সেমিনার, দিবস উদ্যাপন এবং সঙ্গীতানুষ্ঠান করা ছাড়া উদ্যোক্তাদের পক্ষে ১৯৬৭ সালের আগে এ প্রতিষ্ঠানের ব্যাপক কর্মসূচী বাস্তবায়নে অগ্রসর হওয়া সম্ভব হয়নি। কারণ ছিল প্রধানত অর্থনৈতিক। ১৯৬৭ সালের শেষের দিকে ‘নজরুল একাডেমী’ প্রতিষ্ঠান রেজিস্ট্রার অব সোসাইটিজ এবং সোস্যাল ওয়েলফেয়ার এই উভয় দফতরেই রেজিস্ট্রিভুক্ত বিভাগ করা হয়। অতঃপর  একাডেমীর সংবিধান অনুযায়ী আনুষ্ঠানিকভাবে এর প্রথম কার্যনির্বাহী পরিষদ গঠন করা হয়। তাতে অন্তর্ভুক্ত হন Ñ বিচারপতি আবদুল মওদুদ (সভাপতি), আবুল কালাম শামসুদ্দীন, মোহাম্মদ বরকতুল্লাহ এবং সাবির আহমদ চৌধুরী(সহ-সভাপতি), তালিম হোসেন (সাধারণ সম্পাদক), একেএম নুরুল ইসলাম (কোষাধ্যক্ষ) এবং সদস্যবৃন্দ: আকবরউদ্দীন, বে-নজীর আহ্মদ, মোহাম্মদ মোদাব্বের, খান মোহাম্মদ মঈনুদ্দীন, এ এস নূর মোহাম্মদ, এ আর ভূঁইয়া, মোহাম্মদ নাসির আলী, মোহাম্মদ মাহফুজউল্লাহ, কাজী নাজমুল হক, জাহানারা আরজু, মাফরুহা চৌধুরী, শেখ মোসলেম আহমদ প্রমুখ। তদানীন্তন কেন্দ্রীয় যোগাযোগ মন্ত্রী খান এ সবুরের চেষ্টায় কিছু বেসরকারী ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানের দান Ñ প্রায় হাজার পনেরো টাকা সম্বল করে একাডেমীর কর্মসূচী বাস্তবায়নের যাত্রা শুরু হয়। কয়েক মাসের মধ্যেই জনাব সবুরের সুপারিশ এবং তদানীন্তন কেন্দ্রীয় শিক্ষামন্ত্রী, একাডেমীর বর্তমান সভাপতি কাজী আনোয়ারুল হকের সৌজন্যে একাডেমী বার্ষিক পঁচিশ হাজার টাকা সরকারী অনুদান লাভ করে। যাত্রারম্ভে একাডেমীর প্রতি পৃষ্ঠপোষকতার স্বীকৃতিস্বরূপ জনাব খান এ সবুরকে একাডেমীর প্রধান পৃষ্ঠপোষকরূপে গ্রহণ করা হয়। এই পর্যায়ে একাডেমীর সাংবিধানিক ও আর্থিক সংগঠনে জনাব মোহাম্মদ মোদাব্বের, জনাব এ কে এম নুরুল ইসলাম, জনাব এ আর ভূঁইয়া এবং জনাব সাবির আহমদ চৌধুরীর অবদান বিশেষভাবে স্মরণীয়।

একাডেমীর প্রারম্ভকালীন কার্যনির্বাহী পরিষদে সম্পূর্ণভাবে নজরুল-ভিত্তিক একটি নজীরবিহীন উচ্চাকাক্সক্ষী পরিকল্পনার বাস্তবায়নে অন্যান্য যারা সাধারণ সম্পাদকের পাশে এসে দাঁড়িয়েছিলেন, স্বয়ং নজরুলের বন্ধু-সহচর নজরুল বিশেষজ্ঞ ও নজরুল-অনুরাগী হিসাবে তাঁরা সকলেই এদেশে সুপরিচিত। এঁরা সবাই নজরুল একাডেমীর ভিত্তিনির্মাণে আর্থিক, কায়িক ও মানসিক পরিশ্রম দিয়ে অভূতপূর্ব সাহায্য করেছেন।

একাডেমীর প্রতিষ্ঠাতা সাধারণ সম্পাদক জনাব তালিম হোসেন প্রখ্যাত কবি। তাঁর কাব্যে মুসলিম ঐতিহ্যের ব্যবহার তাঁকে নজরুলের উত্তরসূরী কবি হিসাবে চিহ্নিত করেছে। কাব্যাদশ্যে তিনি ‘হিউম্যানিস্ট’। যদিও ইসলামী সাম্যবাদ তাঁর আদর্শ তবুও প্রগতিশীল সাহিত্যচিন্তা থেকে তিনি পা সরিয়ে নেননি। তাঁর কাব্যের ছাঁদও বলে দেয় তিনি কতখানি নজরুলের অনুরাগী। কবি ছাড়াও সম্পাদক হিসাবে তাঁর সুখ্যাতি অসামান্য। একজন প্রথম শ্রেণীর সরকারী কর্মচারী হিসাবে এবং প্রথম শ্রেণরি সাহিত্য পত্রিকা ‘মাহে-নও’এর সম্পাদক হিসাবে তিনি তাঁর কর্মতৎপরতার যেমন পরিচয় দিয়েছেন, তেমনি নজরুল একাডেমী প্রতিষ্ঠা করে তার অসীম সাংগঠনিক ক্ষমতার পরিচয় দিয়েছেন। বিভিন্ন প্রতিকূল অবস্থার সঙ্গে সংগ্রাম করে তিনি নজরুর একাডেমীকে একটি সুবিন্যস্ত প্রতিষ্ঠান হিসাবে দাঁড় করাতে সক্ষম হয়েছেন।

১৯৬৮ সালের মে মাসে নজরুল জয়ন্তী অনুষ্ঠানের সঙ্গে নজরুল একাডেমীর আনুষ্ঠানিক উদ্বোধনী দিবস পালিত হয়। উক্ত অনুষ্ঠানে একাডেমীর সাধারণ সম্পাদক কবি তালিম হোসেন যে বক্তব্য রাখেন তাতে একাডেমীর উদ্যোক্তাদের মনে এই প্রতিষ্ঠান স্থাপনের পেছনে যে ভাবনা-চিন্তা ও দিকদর্শন কাজ করেছিল তার একটি রূপরেখা পাওয়া যাবে কলে এখানে তা আংশিক উদ্ধৃত হলো:

“এদেশের মুসলিম সমাজের নবজাগরণের তুর্যবাদক কবি নজরুল ইসলাম। বিশেষ করে বাঙ্গালী মুসলমানদের মত এত ঋণী তাঁর কাছে  আর কেউ রয়। অথচ নজরুল সার্বিক মানবতারই ঝা-াবাহী কবি। দুনিয়ার সকল দেশের সকল মহৎ কবিই নজরুলের মতো এই দ্বিবিধ গুণাবলীতে চিহ্নিত ও স্মরণীয়।”

“নজরুল একাডেমী বিলম্বে প্রতিষ্ঠার জন্যে জাতির তরফ থেকে দায়িত্বহীনতা ও অকৃতজ্ঞতার অপরাধ আমাদের সর্বাগ্রে স্বীকার করতে হবে। আজ বিলম্বে হলেও আমরা জাতীয় পুনর্গঠনের লক্ষ্যে আমাদের মুক্তি দিশারী নজরুলের নামে এই পূর্ণাঙ্গ ও কেন্দ্রীয় চরিত্র বিশিষ্ট মহান সাংস্কৃতিক প্রতিষ্ঠানের সংগঠনে আত্মনিয়োগ করেছি। যিনি আমাদের ভাষা দিয়েছেন, গান দিয়েছেন, প্রাণ দিয়েছেন Ñসর্বোপরি দিয়েছেন ‘অসঙ্কোচ প্রকাশের দুরন্ত সাহস’, নজরুল একাডেমী সমাজের বুকে চিরদিন তাঁরই প্রেরণা জাগ্রত রাখার প্রয়াসে নিয়োজিত থাকবে। Ñমহৎ আশা নিয়ে কাজ করে যাচ্ছি যে, নজরুল একাডেমীর অঙ্গনে দেশের আপামর জনসাধারণ তাদের সাংস্কৃতিক মুক্তি ও বিকাশের পরম অভীপ্সা নিয়ে সমবেত হবে।”

উক্ত ভাষণেই সাধারণ সম্পাদক একাডেমীর কার্যক্রম সম্পর্কে নিম্নরূপ রূপ-রেখা বিধৃত করেন:
১। নজরুলের সমগ্র রচনা সংগ্রহ, সংকলন, অধ্যয়ন ও গবেষণা এবং তার প্রচার ও প্রকাশে উদ্যোগী হওয়া এবং অন্য ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে সে বিষয়ে সহযোগিতা করা।
২। নজরুলের গানের বাণী ও সুর সংগ্রহ, সংকলন, স্বরলেখন ও প্রকাশনা। নজরুল গীতির চর্চা, শিক্ষাদার, প্রচার ও প্রসারের দায়িত্ব গ্রহণ করা।
৩। সাহিত্য ও সঙ্গীতে নজরুলের অমর সৃষ্টি অনুবাদ ও অন্যান্য মাধ্যমে ভন্ন ভাষাভাষী অঞ্চলে ও বিদেশে তুলে ধরা।
৪। সাধারণভাবে দেশের সাহিত্য, শিল্প ও সংস্কৃতির ঐতিহ্যনির্ভর ও সৃষ্টিশীল বিকাশের উপযোগী কার্যকলাপ পরিচালনা করা।
৫। একাডেমীর কার্যকলাপ, গবেষণা, চিন্তাধারা ও সৃষ্টিশীলতার নিয়মিত প্রকাশ মাধ্যম হিসেবে এর নিজস্ব পত্রিকা প্রকাশ করা।
৬। একাডেমীর উদ্দেশ্য ও আদর্শের সহায়ক গ্রন্থাদি প্রণয়ন ও প্রকাশ এবং এজন্য পূর্ণাঙ্গ মুদ্রণ ও প্রকাশনালয় প্রতিষ্ঠা।
৭। অধ্যয়ন, গবেষণা, শিক্ষাদান ও সাংস্কৃতিক কার্যকলাপের সুবিধা বিধানের জন্য লাইব্রেরী-পাঠাগার স্কুল-গৃহ, নাট্যমঞ্চ ও মিলনায়তনসহ একাডেমীর নিজস্ব ভবন নির্মাণ ইত্যাদি।


নজরুল একাডেমীর পরিচিতিমূলক উক্ত ভাষণে সাধারণ সম্পাদক আরো বলেন:
“নজরুল একডেমী প্রতিষ্ঠায় যাঁরা অগ্রণী হয়েছিলেন, নজরুল বা নজরুল একাডেমী তাঁদের নিকট প্রত্যাদিষ্ট কোন দায় বা দায়িত্ব নয়। এ দায়িত্ব তাঁরা স্বেচ্ছায় অগ্রণী হয়ে নিজেদের উপর গ্রহণ করেছিলেন। সে ইচ্ছা তাঁদের একান্তভাবে নজরুল ও নজরুল-সাহিত্য-সঙ্গীত-প্রীতি প্রণোদিত। আমরা আমাদের সাহিত্য, শিল্প ও সংস্কৃতির সফল নিবেদিত কর্মী, সেবক ও নেতৃপুরুষকে এই একাডেমীর সঙ্গে সংশ্লিষ্ট হয়ে এর সর্বাঙ্গীণ উন্নয়নে আত্মনিয়োগ করতে সাদর ও সানুনয় আহ্বান জানাচ্ছি। নজরুলের অগণিত অনুরাগী সুধী সমাজ এবং দেশবাসীর আজ এ বিষয়ে অবহিত হওয়ার সময় এসেছে যে, বিদেশের কথা বলি না, নানা কার্যকারণ আজ আমাদের এদেশেই নজরুলকে হ্রস্ব বা বিকৃতকরণে প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষ প্রচেষ্টায় লিপ্ত। নজরুল যে অনন্য, তিনি যে আমাদের চিরকালের গর্ব এবং তিনি যে বিশ^-কবি-সভায়ও ‘চির উন্নত শির’ দাঁড়াতে পারেন এ কথা নতুন করে উপলব্ধি করে যথাযোগ্য কর্তব্যে অবহিত হতে আমাদের আর বিলম্ব করা উচিত হবেনা।”

১৯৬৮ সালের ২৫শে মে তৎকালীন ঢাকার অভিজাত হোটেল ইন্টার কন্টিনেন্টাল এ নজরুল একাডেমীর আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন তৎকালীন পাকিস্তানের প্রেসিডেন্ট ফিল্ড মার্শাল মোহাম্মদ আইয়ুব খান। নজরুল একাডেমী আয়োজিত অনুষ্ঠানে বিভিন্ন সময়ে প্রধান অতিথির আসন অলঙ্কৃত করেন সওগাত সম্পাদক মোহাম্মদ নাসির উদ্দীন, প্রধানমন্ত্রী শেখ মুজিবুর রহমান, রাষ্ট্রপতি বিচারপতি এ এম সায়েম, রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমান,  জাতীয় পরিষদের স্পিকার মীর্জা গোলাম হাফিজ, 
বিভিন্ন সময়ে নজরুল একাডেমী  পরিদর্শন করে যারা পরিদর্শন বই এ স্বাক্ষর করেছেন তারা হলেন Ñ পাকিস্তানের কেন্দ্রীয় শিক্ষামন্ত্রী কাজী আনোয়ারুল হক (৭/১/১৯৬৮), ইউএসআইএস এর পরিচালক রে পেপার্স(১৩/৬/১৯৬৮), ফয়েজ আহমদ ফয়েজ (৩০/৬/১৯৬৮), মুজফ্ফর আহ্মদ(২৫/৬/১৯৭২), শ্রীমতি আঙ্গুর বালা দেবী (৩/৬/১৯৭৪), যুক্তরাজ্যের এডিটরিয়াল স্টাডি সেন্টার থম্পসন ফাউ-েশন এর পরিচালক ডি জি এইচ রাউল্যা-স এবং মেরী ই রাউল্যান্ডস(৮/১১/১৯৭৬), সিদ্ধেশ^র মুকোপাধ্যায়(৩/৬/১৯৭৪), মালয়েশিয়ার হাই কমিশনার(৩০/৮/৭৪), আজহারউদ্দীন খান(১৭/৮/১৯৮৩), ধীরেন্দ্র চন্দ্র মিত্র (২৮/৮/৯২), শিশির কর(২৬/৫/৯৯), মালবিকা দাশ (২৭/৮/৯৯), বেগম সেলিমা রহমান(১৬/২/২০০২), সুবর্ণ কাজী(২৯/৩/২০০২), কৌশিক ভট্টাচার্য, রাজনারায়ণ ভট্টাচার্য, সুসময় মিত্র(২/২/২০০৩), কাজী অরিন্দম(২৯/৫/২০০৯), অনিন্দিতা কাজী(২৯/৫/২০০৯), শুভোদয় দাশগুপ্ত (১৮/১২/২০১০), শিশির ঘোষ(৩০/৯/২০১১), ভারতের অগ্নিবীণার সম্পাদক রথিন মুখোপাধ্যায় ও সহ-সভাপতি চুনিলাল মুখোপাধ্যায়(২৪/৮/২০১৪), ভারতের আস্থা ফাউ-েশনের প্রেসিডেন্ট জনাব শেখ নাসিম আহমেদ(২৪/৮/২০১৫), 

 

 

At the joint venture by Justice A.K.M. Nurul Islam and poet Talim Hossain, the 65th birth anniversary of the rebel poet Kazi Nazrul Islam was observed in `Kabitangan’, 11 Rankin Street, Wari, Dhaka, and the residence of Justice A.K.M.  Nurul Islam and poet Jahanara Arjoo. The meeting was presided over by the former President of Bangladesh Justice Abu Sayeed Choudhury. Here in this meeting the establishment of Nazrul Academy in Dhaka, Bangladesh was first proposed and accepted unanimously by the committee formed on 25th May 1964 in honor of the great Rebel poet Kazi Nazrul Islam. The members of the committee was : Abul Kalam Shamsuddinn(Chairman), Talim Hossain(General Secretary), A.K.M. Nurul Islam(Treasurer), Ibrahin Kha, Khan Mohammad Moinuddin, Sufia Kamal, Shirajuddin Hossain, Kazi Abul Kashem, Mohammed Mahfuzullah, Jahanara Arjoo, Mafruha Chowdhury. The committee was patronized by the eminent poets, literature, Intelligentsias, journalists, singers, researchers, cabinet ministers of the then central and provincial government of Pakistan, honorable justices of the High court and Supreme Court.

Towards the organization of Nazrul Academy., the most famous journalist of the country the late Abul Kalam Shamsuddin put his welcome address in his esteemed editorial of his News paper Jehad (now defunct). In his editorial he wrote, ‘Due to the establishment of Nazrul Academy, research of Nazrul’s literary works, its collection and preservation, its wide publicity and spread of ideals would now be ensured. Nazrul Academy had already been established in Karachi, while it were heard of the existence of Nazrul-Iqbal Academy in Dhaka but later on, in fact, no activities of the organization was found. However, no doubt, this time the initiate as taken by the Nazrul Academy committee would be succeeded.’

Nazrul Academy, on 9th October 1967 and on 25th October 1967 was registered under the Social Welfare Act respectively. And with this end in view on the observance of 69th birth anniversary of Kazi Nazrul Islam at the auditorium of the Dhaka Engineers Institute, poet Talim Hossain being the general secretary declared Nazrul Academy open ceremonially in presence of the eminent personalities of the country on 25 may 1968. On this occasion a brochure was published. Among all well-wishers, those who sent messages of felicitations were the then President of Pakistan Field Marshall Ayub Khan, the speaker of the National Assembly Abdul Jabbar Khan, the central communication minister Khan A Sabur, the then speaker of the Provincial Assembly of East Pakistan Abdul Hamid Chowdhury, the speaker of the Provincial Assembly of West Pakistan Mohammad Anwar, the former Vice Chancellor of the Dhaka University Dr. Jahmud Hossain (Jaheed Milli of Karachi), the savant of Bengali literature and eminent educationist Dr. Muhammad Shidullah, former Vice Chancellor of the Dhaka University Muhammad Osman Gani, the famous Urdu poet Hafeez Jalandhary, the eminent artist Abdur Rahman Chughtai. Among all those who commented in the visitor’s book of Nazrul Academy were worth mentioning; Central Education Minister Kazi Anwarul Huq, the Director of the U.S.I.S Ray papers, the famous lyricist of Pakistan, winner of Lenin Peace Prize poet Faiez Ahmad Faiez, Nazrul’s companion and eminent politician of anti British movement comrade Muzzaffar Ahmad, Nazrul’s trainee, the eminent Indian vocal artists and singers Sreemoti angurbala Debi, Sidheswar Mukhopadhaya, Dhirendra Chandra Mitra, the director of Editorial study Center thomson Foundation, U.K, D.G.H. Raulandce and Merry E. Raulandce the High Commissioner of Malaysia, the eminent Indian researcher of Nazrul Azharuddin Khan and Dr. Sisir Kar, the deputy minister of cultural Affairs of Bangladesh Mrs. Selima Rahman, the sons of the poet Kazi Nazrul Islam Sabyasachi, Kazi Anirudha, poet’s daughter in law Uma Kazi, Dr. Kallyani Kazi, Grand daughters of the poet Mishti Kazi, and Khilkhil Kazi, Grand sons Babul Kazi and Subarna Kazi, and Kazi Mazharul Huq, the son of poet’s brother Kazi Ali Hossain.

After the independence of Bangladesh through liberation war the father of the nation the then Prime Minister Sheikh Mujibur Rahman sent massage of felicitation on the 73rd Birthday anniversary of Kazi Nazrul Islam on 24th May 1972. Thereafter former President of Bangladesh Justice A.M. Sayem, Saheed President Ziaur Rahman, the speaker of the National Assembly Mirza Golam Hafiz, Nazrul’s friend Kazi Motahar Hossain, the editor of the `Saugat’ Muhammad Nasiruddin, President H.M. Ershad, and many other ministers, members of the Parliament. eminent poets, literature, vocal artists on Nazrul, artists of classical music, researchers, journalists, intelligentsias of this sub-continent come to visit Nazrul Academy and felicitated. It is a matter of pride that the Bangali speaking people living in many other countries of the world used often go felicitate for the establishment of Nazrul Academy in letters and over telephones. Since the establishment of Nazrul Academy, a research-oriented ‘Nazrul Academy Patrika’ was published in which the eminent writers contributed their research oriented articles and memoirs on Nazrul And enriched it. Besides notations on Nazrul songs, Nazrul’s hand written manuscript, gramophone records on Nazrul’s song by the different vocal artists, rare pictures and poetical works of Nazrul were collected and preserved and published as `The collected works of Nazrul in which many writers contributed their articles who were directly associated with Nazrul. On the occasion of Nazrul’s birth and death anniversary Nazrul Academy used to publish a special issue of colorful souvenir, special supplement, pictorial journal containing news of Nazrul Academy. Since this Academy published 36 journals, 7 books, 10 notation books, Nazrul Academy diary(First of its kind published in the sub-continent, made cassettes of unused Nazrul’s songs, Nazrul poster, T-shirt embodying Nazrul etc. In Remembrance of Nazrul’s boyhood, Nazrul Academy was the first organization that, Along with the eminent personalities and artists, performed a cultural function in 1968 in honor of our national poet at Trisal, Darirampur and at a remote village of Kazir Simla (where Nazrul came, resided and stydied in school for sometimes). Nowadays this sort of performance had been continuing under the patronization of the government. During the liberation war artists of Nazrul Academy entertained four hostoric Nazrul songs in 45rpm gramophone records : 1. Karaf oi louho kabat.... 2. Shikol pora chhol moder.... 3. Durgomo giri kantar moru.... 4. Chol chol chol.... broadcast regularly from the Swadhin Bangla Betar Kendra to inspire the liberation warriors in 1971.

Nazrul Academy is the architect of establishing the Nazrul Institute at Dhanmondi in Dhaka publicly. Nazrul Academy was the first organization that convened Nazrul Conference all over Bangladesh in 1980. In its continuation the different organization are performing Nazrul conference nowadays. Nazrul Academy also pre-ceded to establish first `Open Nazrul Platform’ to facilitate and ensure all cultural organizational to perform their cultural movement of performances of functions openly. As a result, discussants, reciting artists, and vocal artists have their place to perform widely. Nazrul Academy was the first organization that travelled India along with its own artists and not3ed singers and performers and proved its worth and merit participating different music conferences there. Later on in its continuation Indian and Bangladeshi artists reciprocally participate the Music conference each other’s country almost in each year as to have cultural cohesiveness and bond of friendship between the two countries.

On 24th May in 1972 Bangobandhu Shiekh Mujibur Rahman, the father of the nation arranged to bring poet Kazi Nazrul Islam along with his family in Bangladesh permanently. Since in Dhanmondi Kabi Bhawan huge people i=of all sections used to come to see the poet at a glance and pay homage to him. After the demise of the poet on 29th August 1976, the then Chief Martial Law Administrator of Bangladesh, Freedom fighter, Commander of `Z’ force under sector no. 9 of the liberation war of Bangladesh, General Ziaur Rahman laid the coffin of the poet under the grave at the courtyard of the mosque of the Dhaka University premises among millions of people and declared him (Nazrul) as the National poet of Bangladesh. Since poet’s arrival in Bangladesh and people’s overwhelming love and respect for the poet. Nazrul Academy has been continuing to open its branch in each district of Bangladesh. This process is ongoing.

Meanwhile Nazrul Academy declared in principle that it would soon build a multistoried building at its office Headquarter at Belalabad, Moghbazar in Dhaka for establishing a Nazrul University of performing Arts of which the initial work has already been started. There are three sections namely (1) Music Section, (2) School section for general students, and (3) Fine Arts School running at Nazrul Academy performing its functions with good reputation since the beginning. Here 32 teachers and 8 staff against over three hundred students run these sections. On completion of its aims and ideals Nazrul Academy has been contributing towards the spread of country’s folk culture and paying homage to the eminent cultural personalities of Bangladesh.

In each year Nazrul Academy confer two awards along with cash money to the outstanding contributors for awards along with cash money to the outstanding contributors for research on music and literature. In acknowledging the contributors in the field of different cultural developments, journalist, intelligentsia, theater artist, reciting artist, vocal artist of Nazrul and Nazrul organizer is awarded honorary crest and cordial reception to the accomplished personality. Beside that in association with the vocal artists, musicians, dancers reciting artists, artists of Nazrul songs Nazrul Academy arranges Nazrul Conference each rear, In order to fill in the vacancy of artists Nazrul Academy has ventured ‘Young and Promising Nazrul Artist Project’ where many young and meritorious artists could avail of the opportunity to give vent their genius and support filling in the vacuum of meritorious artists. Beside this there is a colossal exchange of musical relations between the artists to evaluate their respective merits.

Since its inception the following person consecutively being the president and General Secretary has been performing respectively the duty and responsibility of Nazrul Academy, Dhaka:

President – Abul Kalam Samsuddin, Justice Abdul Maudud, Kazi Anwarul Huq, Mohammad Nasiruddin, Poet Talim Hossain, Lutfar Rahman Sarkar, Khondokar Shahadat Hossain, Dr. Ahraf siddique, and General Secretary – Poet Talim Hossain, Khondokar Shahadat Hossain, Dr. Rafiqul Islam, Mintu Rahman.

Since the establishment of Nazrul Academy along with the above noted committee and the officials the best performance accorded to poet Talim Hossain till death and in appreciation of his performance as well being accomplished one and as such he was honored as the `Pioneer of Nazrul culture and Researcher’ on 25th October 1996 at 5 pm in Nazrul Academy and the committee declared him as the pioneer to the establishment of Nazrul Academy while the meeting was presided over by Mr. Lutfar Rahman Sarkar. The meeting was ornamented by the presence of the eminent Nazrul researcher of West Bengal, India and the patron of churulia Nazrul Academy Sree Kalpotoru Sengupta being the chief guest. Poet Talim Hossain could not attend the meeting due to his illness the then joint secretary Mintu Rahman associated with other members of the executive committee went to the residence of the poet and made over the honored crest and flowers of felicitation to the poet at his west Malibag residence.

London`s Covent Garden early morning market. Succulent nectarine, peach and cassis and delicate spring flowers melt into the note of acacia honey. Sweet and delightfully playful. With its luxurious lather and revitalising fragrances, our Body & Hand Wash refreshes and conditions the skin, leaving it deliciously scented.

add clearfix to tab-content (see the css)

 Delivery Information

Your Name

 
Your Email

   
Comment
 
 
Rate This Product :
21084 30740 1467
Nuzrul Academy
Ad Code: 201806000026
Location:   http://nazrulacademy.org.bd/
Contact: Phone No. 0258310079
Rating :
Web Site:
http://nazrulacademy.org.bd/
Available as early as:
Click Here For Show Contact

Email: nazrulacademy.dhaka@gmail.com

Sponsored Ads
Sponsored Ads
 Owner Name: Nuzrul Academy
Email: nazrulacademy.dhaka@gmail.com
phone: 0258310079
Address: Nazrul Bhaban, Belalabad, Mogbazar, Dhaka-1000
Have any issue ?
Reporting
Cause  
Comments  

All Product

Nuzrul Academy


Contact for Price

Shop

Property

Motors

Services

Education

jobs

Health Here

Food

Service

MORE PRODUCTS

Product Name

Address:name
nfoname@gmail.com
Price:BDT.1500

Product Name

Address:name
nfoname@gmail.com
Price:BDT.1500

Product Name

Address:name
nfoname@gmail.com
Price:BDT.1500

Maa Forever

Web developer
Education:B.Ssc in(cse) Experience:5 years Deadline:Jun 30, 2016

Maa Forever

Web developer
Education:B.Ssc in(cse) Experience:5 years Deadline:Jun 30, 2016

Maa Forever

Web developer
Education:B.Ssc in(cse) Experience:5 years Deadline:Jun 30, 2016

Maa Forever

Web developer
Education:B.Ssc in(cse) Experience:5 years Deadline:Jun 30, 2016

Maa Forever

Web developer
Education:B.Ssc in(cse) Experience:5 years Deadline:Jun 30, 2016

Maa Forever

Web developer
Education:B.Ssc in(cse) Experience:5 years Deadline:Jun 30, 2016

Maa Forever

Web developer
Education:B.Ssc in(cse) Experience:5 years Deadline:Jun 30, 2016

Maa Forever

Web developer
Education:B.Ssc in(cse) Experience:5 years Deadline:Jun 30, 2016

Maa Forever

Web developer
Education:B.Ssc in(cse) Experience:5 years Deadline:Jun 30, 2016

Maa Forever

Web developer
Education:B.Ssc in(cse) Experience:5 years Deadline:Jun 30, 2016

Maa Forever

Web developer
Education:B.Ssc in(cse) Experience:5 years Deadline:Jun 30, 2016

Maa Forever

Web developer
Education:B.Ssc in(cse) Experience:5 years Deadline:Jun 30, 2016

Maa Forever

Web developer
Education:B.Ssc in(cse) Experience:5 years Deadline:Jun 30, 2016
21084 user/nazrulacademy.dhaka/imgnuzrunazrul-1.jpg
nuzrul-academy Nuzrul-Academy 21084 30740 1467 http://www.oiiohaat.com/info/nuzrul-academy-201806000026 nuzrul-academy